নিউজপ্রেসবিডি । NewsPressBD
সত্য, সম্পূর্ণ সত্য এবং কেবলমাত্র সত্য

আসন্ন নির্বাচন নিয়ে সরগরম

নির্বাচনী শিডিউল ঘোষণা হয়েছে বেশ কদিন আগেই। এখন পর্যন্ত তেমন কোন অপ্রীতিকর ঘটনার সূত্রপাত হয়নি। সবই যে যার মতো করে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন যে সবকিছু ভালভাবে সামাল দিতে পারছে তা বলা যাবে না। তবে নির্বাচন কমিশন সবকিছুই ধৈর্যের সাথে সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছে। এখন পর্যন্ত পক্ষপাত দেখানোর কোন ঘটনা চোখে পড়েনি। তবে নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে রাতদিন কাজ করে চলেছে। রাজনৈতিক দলগুলা এবং প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সহযোগিতা করলে নির্বাচন কমিশন নিশ্চয়ই স্বস্তি অনুভব করবে। দেশবাসীও তাই চায়। দেশবাসী চায় মানুষ যেনো তাদের স্ব স্ব ভোট দিতে পারে নির্বিঘ্নে। সেদিকেই তাকিয়ে আছে গোটা জাতি। আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হব। সে লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি এগিয়ে চলেছে।

বিবিসি’র ভাষ্য

বিবিসি এক খবরে বলেছে, সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পুলিশ কথা না শুনলে নির্বাচন কমিশন কী করতে পারে ? আইন শৃঙ্খলা নিয়ে আজ বৈঠকে বসছে নির্বাচন কমিশন। পুলিশ এবং আইনশৃঙ্খলার সাথে সম্পর্কিত উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে আজ এক বৈঠকে বসছে নির্বাচন কমিশন। কমিশনের কর্মকর্তারা বলছেন, সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হবে এই বৈঠক থকে।

- বিজ্ঞাপন -

বিবিসি’র খবরে বলা হয়, বৈঠকটি এমন সময় হচ্ছে যখন বিরোধী রাজনৈতিক দল বিএনপি ক্রমাগত অভিযোগ করে চলেছে যে, শিডিউল ঘোষণার পরও বিভিন্ন জায়গায় তাদের নেতা কর্মীদের ধরপাকড় করা হচ্ছে। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তফসিলের পর থেকে এপর্যন্ত গ্রেফতার হওয়া তাদের দলের ৫২৯ জন নেতা কর্মীর তালিকা নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়েছেন।

বিএনপি নেতা মি. ফখরুল ইসলাম আলমগীরের অভিযোগ, পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা সরকারের পক্ষে কাজ করছেন।তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বিবিসি বাংলার কাছে দাবি করেছেন যে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া কাউকেই আটক করা হচ্ছেনা। এ পটভূমিতে পুলিশ ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন, নির্বাচনের প্রাক প্রস্তুতির অংশ হিসেবে যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী বিবিসি বাংলাকে বলেছেন আইন শৃঙ্খলার বিষয়ে কোনো নির্দেশনা দেয়ার থাকলে সেটিই আজ কর্মকর্তাদের দেবেন তারা।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, যেহেতু এখন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়েছে তাই নির্বাচন বা রাজনীতি সংক্রান্ত বিষয়ে যেনো কোন দলের নেতাকর্মী হয়রানির শিকার না হয় সেব্যাপারে সতর্ক থাকা। যদিও আইন শৃঙ্খলাকে অস্থিতিশীল করতেও হয়তো কেউ তৎপর থাকবে-সেটিও সহনশীলতার সাথে দেখতে হবে। মি. চৌধুরী বলছেন, রাজনৈতিক কর্মী সমর্থক বা নেতাদের রাজনীতি সম্পর্কিত কোন তৎপরতার জন্য ধরপাকড় যেনো না হয় সে ব্যাপারে তাদের বলা হবে। বিএনপি ধরপাকড়ের যেসব অভিযোগ করেছে সে সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, একটি তালিকা দেখেছি যেখানে ২০১৩-১৫ সালে আটক যারা হয়েছেন তাদের মামলার তালিকা।কমিশন বলছে, ভোটের রেজাল্ট গেজেট হওয়া পর্যন্ত পুলিশের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারে
পুলিশ কথা না শুনলে কমিশন কী করতে পারে?

নির্বাচন কমিশনার শাহাদত হোসেন চৌধুরী বিবিসি বাংলাকে বলছেন, এ বিষয়ে একটি আইন রয়েছে। তফসিল ঘোষণা থেকে চূড়ান্ত রেজাল্ট এবং সেটা গেজেট হওয়া পর্যন্ত যে নির্বাচন কালীন সময় আছে এটুকু সময়ে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা কমিশন নিতে পারে।

কর্মকর্তারা বলছেন- আইনানুগ ব্যবস্থা বলতে পুলিশ যদি নির্দেশনা না মানে তাহলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যে কোন ধরণের ব্যবস্থার নির্দেশ দিতে পারে কমিশন। তবে যেহেতু একটি দলীয় সরকার ক্ষমতায় আছে এবং পুলিশ বিষয়ে কমিশনের নির্দেশনা কতটুকু কার্যকর হয় সেটি নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। কমিশন সচিবালয়ের একজন কর্মকর্তা বলছেন একমাত্র এ ধরণের পরিস্থিতি উদ্ভব হলেই দেখা যাবে যে কমিশনের নির্দেশনা কার্যকর হয় কি-না ঠিকমতো।

আইন শৃঙ্খলা বিষয়ে অগ্রাধিকার কি কি

শাহাদত হোসেন চৌধুরী বলছেন নির্বাচনের একটা সুষ্ঠু সুন্দর নির্বাচনের পরিবেশ যেনো থাকে এটিই কমিশনের চাওয়া।

এখন থেকে নির্বাচন পর্যন্ত প্রার্থীরা যেনো লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড পায়। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সারা পৃথিবীতেই আছে। আমরা তেমন আশংকা না করলেও উড়িয়ে তো দেয়া যায়না। তিনি বলেন, তারা চান নির্বাচনের পরিবেশ যেনো সুষ্ঠু থাকে। প্রার্থীরা যেনো সমান সুযোগ পায় ও ভোটাররা যেনো নির্বিঘ্নে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারে। আর নির্বাচনের পরেও যেনো কোনো সহিংসতা না হয়।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা অনুমান করব আপনি এর সাথে ঠিক আছেন, তবে আপনি যদি চান তবে আপনি অপট-আউট করতে পারেন। স্বীকারআরও পড়ুন